ব্যাপন ও অভিস্রবণ

তুমি কি কখনও নিজের পড়ার ঘরে বসে হঠাৎ খাবার রান্না করার ঘ্রান পেয়েছো। ঘ্রানটা এতটা শক্তিশালী যে মনে হচ্ছিল ঠিক তোমার পাশেই আছে! এটি ব্যাপনের কারণে ঘটে।

আবার তোমার ক্লাসরুম এর কথা চিন্তা কর, তুমি এবং তোমার সহপাঠীরা সবাই কি একসাথে ঘরের এক কোণে আটকে আছে? সম্ভবত না! ডেস্ক এবং চেয়ারগুলি সমানভাবে শ্রেণিকক্ষে রাখা হয় যাতে কেউ একসাথে খুব কাছাকাছি না থাকে। ব্যাপন একইভাবে কাজ করে। কণাগুলো বা অণু গুলো এক জায়গায় একসাথে আটকে না থেকে চারদিকে ছাড়িয়ে পরে।

তাহলে ব্যাপন কাকে বলে ?

ব্যাপন

যে ভৌত প্রক্রিয়ায় কোনো পদার্থের অণুগুলো অধিকতর ঘনত্বের স্থান হতে কম ঘনত্বের স্থানে বিস্তার লাভ করে তাকে ব্যাপন বলে।

ব্যাপন চাপ বলতে কী বোঝ?

ব্যাপনকারী পদার্থের অণু-পরমাণুগুলোর গতিশক্তির প্রভাবে এক প্রকার চাপের সৃষ্টি হয় যার প্রভাবে অণুগুলো অধিক ঘনত্ব অঞ্চল থেকে কম ঘনত্বের অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে, এই চাপকে ব্যাপন চাপ বলে।

অভিস্রবণ কাকে বলে ?

দুটি ভিন্ন ঘনত্বের দ্রবণ একটি অর্ধভেদ্য পর্দা দিয়ে পাশাপাশি আলাদা করে রাখলে পর্দা ভেদ করে কম ঘন দ্রবণ থেকে অধিক ঘন দ্রবণের দিকে দ্রাবক অণু প্রবেশ করার প্রক্রিয়াকে অভিস্রবণ বলে। দুটো দ্রবণের ঘনত্ব সমান না হওয়া পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া চলতে থাকে।

অভিস্রবণের বৈশিষ্ট্য :

  • অভিস্রবণ প্রক্রিয়া কেবলমাত্র তরলের ক্ষেত্রে ঘটে।
  • ভিন্ন ঘনত্বের দুটি দ্রবণের মাঝে একটি অর্ধভেদ্য পর্দা থাকতে হয়।

ব্যাপণের বৈশিষ্ট্য :

  • ব্যাপন ক্রিয়ার দ্বারা কোষে অক্সিজেন প্রবেশ করে এবং কার্বন-ডাইঅক্সাইড বের হয়ে যায়।
  • ভিন্ন ঘনত্বের দুটি দ্রবণের মাঝে অর্ধভেদ্য পর্দার প্রয়োজন হয় না।

ব্যাপন ও অভিস্রবনের মধ্যে দুইটি পার্থক্য

ব্যাপনঅভিস্রবণ
ব্যাপন প্রক্রিয়ায় অধিক ঘনযুক্ত স্থান হতে অনুসমূহ কম ঘন স্থানে দিকে ছড়িয়ে পড়ে।অভিস্রবণ প্রক্রিয়ায় কম ঘনত্বের দ্রবন হলে অধিক ঘনত্বের দ্রবনের দিকে দ্রাবক ব্যাপিত হয়।
ব্যাপন সংঘটিত হতে কোনো পর্দার প্রয়োজন হয় না।ভিন্ন ঘনত্বের দুটি দ্রবন একটি বৈষম্য ভেদ্য পর্দা দ্বারা পৃথক থাকতে হয়।

পানিতে কিশমিশ রাখলে ফুলে উঠে কেন ?

কিশমিশ পানিতে ডুবালে অভিস্রবণ প্রক্রিয়ায় পানি শোষণ করে ফুলে ওঠে। কিশমিশের কোষ প্রাচীর হলো বৈষম্যভেদ্য ঝিল্লি। যখন কিশমিশকে পানিতে রাখা হয় তখন কম ঘনত্বের দ্রবন হতে পানি বৈষম্যভেদ্য ঝিল্লি অতিক্রম করে কিশমিশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। যার ফলে পানিতে কিশমিশ রাখলে ফুলে ওঠে ।